গোয়াইনঘাট প্রচ্ছদ

ধানক্ষেত থেকে নিখোঁজ ব্যাক্তির অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করলো পুলিশ, ৪৮ঘন্টার মধ্যে মূল আসামিসহ- ৫জন গ্রেফতার

ডেইলি গোয়াইনঘাট ডেস্ক :: সিলেটের সু্যোগ্য পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম’র দিক নির্দেশনায় এবং গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদ’র তত্ত্বাবধানে সাধারণ ডায়েরির ৪৮ঘন্টার মধ্যে ধান ক্ষেত থেকে নিখোঁজ ব্যাক্তির অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করেছে গোয়াইনঘাট থানা পুলিশ। সেই সাথে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত ৫জনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ।পুলিশ সুত্রে জানাযায়, সুনামগঞ্জের তাহিরপুর এলাকার বেতগড়া এলাকার সবুর আলীর পুত্র রাসেল (২০) জাফলংয়ে কাজের উদ্দেশ্য বেশ কয়েক দিন থেকে অবস্থান করেছে। বুধবার রাতে কাজ শেষে রাসেল বাজারে এসে টেলিভিশন দেখতে যায়। টেলিভিশন দেখা শেষে বাসায় যাওয়ার পথে তার সাথে থাকা ৫জন ব্যক্তি জাফলংয়ের একটি ধান ক্ষেতে পাথর দিয়ে তার মাথায় আঘাত করে পালিয়ে যায়। এরপর বৃহস্পতিবার পরিবারের পক্ষ থেকে রাসেল নিখোঁজ রয়েছে মর্মে গোয়াইনঘাট থানায় একটি সাধারণ ডায়রী করেন রাসেলের বাবা গোয়াইনঘাট থানার সাধারণ ডায়েরি নং ৭৭১, তাং- ১৫/১০/২০২০ এর পরিপ্রেক্ষিতে শুক্রবার সকালে গোয়াইনঘাট থানা পুলিশ জাফলংয়ের একটি ধানক্ষেত থেকে রাসেলের মরদেহ উদ্ধার করে। পরে পুলিশ লাশের প্রাথমিক সুরতাহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়না তদন্তের জন্য সিওমেক হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। এঘটনাপর তাৎক্ষণিক গোয়াইনঘাট থানার ওসি মো. আব্দুল আহাদসহ পুলিশের একটি টিম এ হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন করে ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে মেহেদি হাছানকে গ্রেফতার করেন। পরে তার দেওয়া তথ্যমতে অপর ৫জনকে গ্রেফতার করে থানা পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলো, সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার শ্রীপুর এলাকার মৃত শানুর মিয়ার পুত্র মেহেদী হাসান (২৫), একই উপজেলার আব্দুল জালাম মিয়ার ছেলে ইব্রাহিম মিয়া (৩০), মো রইচ উদ্দিনের ছেলে সুলেমান মিয়া (৩৫), তরং এলাকার আব্দুস ছালামের ছেলে নজির হোসেন (২৮), এবং একই এলাকার মৃত জামাল মিয়ার ছেলে শাহিদুল ইসলাম (২৬)।

এব্যাপারে গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদ সত্যতা নিশ্চিত করে ডেইলি গোয়াইনঘাটকে জানান , গত বুধবার রাতে রাসেল বাড়ি থেকে বের হন। রাতে আর বাড়ি ফিরে না আসায় তার পরিবারের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার গোয়াইনঘাট থানায় নিখোঁজ আছে মর্মে একটি জিডি করেন। জিডির পরিপ্রেক্ষিতে থানার এসআই মতিউর রহমান রাসেলের সন্ধান করতে গিয়ে শুক্রবার জাফলংয়ের একটি ধান ক্ষেতে রাসেলের লাশ পড়ে থাকতে দেখেন। তাৎক্ষণিক পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে প্রাথমিক সুরতাহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য সিওমেক হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। তবে এ ঘটনায় জড়িত ৫জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তারা প্রাথমিকভাবে এ হত্যা কান্ডের কথা স্বীকার করেছে। শুক্রবার রাত সাড়ে  ১০টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নিহতের পিতা সবুর আলী বাদি হয়ে গোয়াইনঘাট থানায় হত্যা মামলা দ্বায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে সুত্র  জানাযায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *